ক্যারিয়ার বইয়ের রাজ্য

অর্থ উপার্জনের তিনটি সেরা উপায়

অর্থ উপার্জনের উপায়

মনে করুন দুইজন মানুষ একজনের নাম মারুফ, আরেকজনের নাম জিসান। মারুফ একটি বড় কোম্পানিতে চাকরি করে যেখান থেকে সে বছরে ১৫ লাখ টাকা বেতন পায়, আর জিসান একটা অনলাইন ব্যবসা শুরু করে বছরে ৮ লাখ টাকা ইনকাম করে । এখন আমি যদি আপনাকে জিজ্ঞেস করি দুজনের ভিতরে ধনী কে হবে ? অলমোস্ট সবাই বলবে মারুফ কেননা তার ইনকাম জিসান থেকে প্রায় দ্বিগুণ । আপনার উত্তর সঠিক কিন্তু ততক্ষণ পর্যন্ত যতক্ষণ আমরা তাদের কে absolute ইনকামে কম্পেয়ার করছি ,কেননা বাস্তবিক দুনিয়ায় আমরা সবকিছু নগদে হিসাব করতে পছন্দ করি , কিন্তু আমরা যদি সময়ের হিসেবে কম্পেয়ার করি আপনার ধারণা পুরোপুরি পরিবর্তন হয়ে যাবে । মারুফ সপ্তাহে ৬০ ঘন্টা কাজ করে আর জিসান কাজ করে সপ্তাহে 10 ঘন্টা যার হিসেবে আমরা যদি ক্যালকুলেশন করি প্রতি ঘন্টার জন্য মারুফকে দেয়া হয় ৪৮০ টাকা আর জিসান প্রতি ঘন্টায় ইনকাম করে ১৫৩৮ টাকা । এখন চিন্তা করুন কে বেশি ইনকাম করছে । সময় আমাদের জীবনে সব থেকে মূল্যবান জিনিস যদি আমরা সময় অনুযায়ী তুলনা করি তাহলে এখানে জিসান মারুফ থেকে অনেক বেশি ধনী কেননা সে মারুফ থেকে ৫০ ঘন্টা কম কাজ করছে , এখন আপনি চিন্তা করুন এ ৫০ ঘন্টায় জিসান আরো কত কিছু করতে পারে । যেমন ৫০ ঘন্টায় জিসান নতুন কিছু শিখে তার ব্যবসা আরও বাড়াতে পারে যাতে ওর ব্যবসার প্রসার আরো বাড়বে এবং ইনকাম দ্বিগুণ হওয়ার সম্ভাবনা আছে , জিসান তার ফ্যামিলি , ফ্রেন্ডস এবং তার নিজের শরীরের উপর আরও সময় দিতে পারতেছে যার পরিবর্তে তার লাইফের খুশি আরো বাড়বে । যেখানে মারুফের জন্য এইসব কাজ করা অনেক কঠিন কেননা তার কাছে সময় অনেক কম । চলুন জেনে নেয়া যাক Geoarbitrage কনসেপ্ট কি? কিভাবে ওই কনসেপ্ট ফলো করে টোটাল বিষয়টাকে আরো ইন্টারেস্টিং ভাবে বুঝা যায় | মারুফ কাজ করে একটি বড় কোম্পানিতে যা একটি বড় শহরে অবস্থিত মারুফকে অফিসে যাওয়ার জন্য অফিসের কাছাকাছি বাসা নিয়ে থাকতে হচ্ছে যেখানে জিসান অনলাইন বিজনেস করে, সে নিজের কাজ পুরা দুনিয়ার যেকোন জায়গা থেকে করতে পারে তার শুধু দরকার ল্যাপটপ আর ইন্টারনেট সংযোগ । এসব বলার কারণ হচ্ছে মারুফ কে প্রতিদিন অফিসে আসা যাওয়ার একটা খরচ ,শহরে বাসা ভাড়া করে থাকার খরচ বহন করতে হচ্ছে ,যা তার নির্ধারিত বেতন থেকে বহন করতে হচ্ছে যার কারণে অনেক বেশি ইনকাম করার পরেও বছর শেষে মারুফ খুব বেশি সঞ্চয় করতে পারছে না । যেখানে জিসান পুরা দুনিয়া ঘুরতে ঘুরতে কাজ করার স্বাধীনতা পাচ্ছে এবং সে ইনকাম করছে আমেরিকান ডলার এবং খরচ করছে বাংলা টাকায় যে হিসেবে তার খরচ অনেক কম হচ্ছে কম্পেয়ার করে যদি বলি , এ কম খরচের কারণে বছর শেষে তার সেভিং অনেক বেশি হচ্ছে আর এটাই হচ্ছে Geoarbitrage প্রিন্সিপাল । ” লিভিং ইন দ্য ইকোনমিক ডিসটেন্স বিটুইন মার্কেট টু জেনারেটর হাই রিটার্ন ” আর এটা শুধু জিসানের জন্য সম্ভব মারুফ এর জন্য নয় ।

এখন আসা যাক আসল কথায় আমাদেরও কি জিসানের মত কম সময় দিয়ে একটা ভালো ইনকাম জেনারেট করা সম্ভব? এর উত্তর হচ্ছে হ্যাঁ, অবশ্যই সম্ভব । এটা আপনি করতে পারেন আপনার ইনকাম কে অটোমেটেড বানিয়া। ইনকাম সাধারণত দুই রকমের হয় ,অ্যাক্টিভ ইনকাম আর প্যাসিভ ইনকাম , অ্যাক্টিভ ইনকাম মানে হচ্ছে যা অর্জন করার জন্য আমাদেরকে সব সময় এক্টিভ থাকতে হয় , মানে হচ্ছে আমরা যদি কাজ না করি তাহলে আমাদের কোন ইনকাম হবে না । উদাহরণস্বরূপ চাকরি করা অথবা একটা দোকান দিয়ে নিজের দোকানটা পরিচালনা করা ।

প্যাসিভ ইনকাম

প্যাসিভ ইনকাম মানে হচ্ছে ইনকাম আসার জন্য আপনাকে প্রথম দিকে একটু বেশি সময় দিয়ে কাজ করতে হবে একটা সময় আপনি আর কাজ না করলেও অথবা অল্প সময় কাজ করলেও ইনকাম আসতে থাকবে উদাহরণস্বরূপ বলা যায় আপনার ওই দোকানটা ভাড়ায় দিয়ে দেয়া যা থেকে আপনার মাসিক ইনকাম আসতে থাকবে অথবা একটা ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করে ভিডিও আপলোড করে গুগল এডসেন্স সহ আর যে যে পদ্ধতির মাধ্যমে ইনকাম করা যায় তা করা । সত্যি কথা বলতে ইন্টারনেট থেকে অটোমেটেড ইনকাম করার অনেক পদ্ধতি আছে।

আমার কাছে যে তিনটা পদ্ধতি সবথেকে পপুলার মনে হয় তার ভিতরে প্রথম হচ্ছে নিজের কোন প্রোডাক্ট অথবা কন্টেন্ট বানিয়ে ,প্রোডাক্টের আইডিয়া লাইসেন্স করিয়ে ,অথবা প্রোডাক্ট রিসেল করে । এই তিনটার ভিতর সবথেকে সহজ হচ্ছে রিসেলার হওয়া । মনে করেন আপনি রিসেলার হতে চান , তো সবার আগে বিক্রি করার জন্য আপনাকে একটা পণ্য কিনতে হবে যা আপনি যেকোনো হোলসেল মার্কেট থেকে অথবা হোলসেলে প্রোডাক্ট বিক্রি করা কোন ওয়েবসাইট থেকে কিনতে পারেন, তারপরে আপনার প্রোডাক্ট ডাইরেক্ট সেম টু সেম অথবা ওই প্রোডাক্ট একটু বেটার বানিয়ে যেমন ওই প্রোডাক্ট কে মডিফাই করে ফাইনাল প্রোডাক্ট লাভ সহ বিক্রি করতে পারেন | ফাইনাল প্রোডাক্ট নিজের কোন ওয়েবসাইট বানিয়ে অথবা অ্যামাজনে একটা সেলার একাউন্ট ক্রিয়েট করে বিক্রি করতে পারেন | পুরো ব্যাপারটা অবশ্য এত সহজ না যত সহজে আমি বলে ফেললাম । আপনাকে অনেক কিছু প্রাথমিকভাবে শিখতে হবে যদি সবকিছু একবার আপনার বোঝা হয়ে যায় আপনি অনেক কাজ আউটসোর্স করে ও একটা ভালো ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন

কোন কাজ খুব এফেক্টিভলি এবং কম সময়ে করার জন্য লেখক আমাদেরকে দুইটা বিষয় খুব বেশি ফোকাস করতে বলেছেন প্রথম

এলিমিনেশন

আপনার জানা দরকার আপনি কোন কোন কাজ করবেন , এর থেকে বেশি দরকারি আপনি কোন কোন কাজ করবেন না | বিষয়গুলো আরও ভালোভাবে বুঝার জন্য একটা প্রিন্সিপাল মাঝখানে আসে তা হচ্ছে ৮০-২০ রুলস । এই প্রিন্সিপাল সত্যিই অনেক পাওয়ারফুল ।যারা জানেন না তাদেরকে বলি ৮০-২০ রুলস মূলত হচ্ছে আপনার বেশিরভাগ কাজের রেজাল্ট আপনি পান আপনার কম কাজ থেকে মানে আপনার ৮০% রেজাল্ট আপনার ২০% কাজের কারণেই আসে । এই জন্য আপনার এটা জানা দরকার আপনার ওই ২০% কি কাজ যা আপনাকে ৮০% রেজাল্ট এনে দেয় । যাতে করে আপনি আপনার সমস্ত ফোকাস ২০% কাজে দিতে পারেন আর বাকি ৮০% কাজ এলিমিনেট করে দিতে পারেন।

আউটসোর্সিং

আপনি হয়তো চিন্তা করতে পারেন ধনী ব্যক্তিরা এত অলস কেন হয় তারা প্রত্যেকটা ছোট কাজের জন্য কেন কর্মচারী রাখে । যেমন গাড়ি চালানোর জন্য ড্রাইভার , বাসার কাজ করার জন্য কাজের লোক, আপনার মনে হতে পারে তারা এসব শুধু showoff করার জন্যই করে , তারা মনে হয় অনেক অলস যে নিজেই নিজেই ছোটখাট কাজ করতে পারে না । আপনি নিজেই নিজের কাছে ভুল প্রমাণিত হবেন যদি আপনি রিচ মেন্টালিটি মানুষের মতো চিন্তা করেন ,আসলে তারা কেন ছোটখাট কাজের জন্য কাজের লোক রাখে । তারা মূলত কাজের লোক রাখে নিজের টাইম বাঁচানোর জন্য showoff করার জন্য নয় | তাদের সময়ের মূল্য তাদের জানা থাকে তারা খুব ভালো করে জানে যে সময়টাতে তারা ড্রাইভিং এবং অন্যান্য ছোট কাজে সময় ব্যয় করবে ওই সময়টাতে তারা বড় কোনো প্রজেক্ট এ সময় দিয়ে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবে এবং ঐ সমস্ত কাজের লোকদেরকে টাকা দেয়ার পরেও টাকা থেকে যাবে । এজন্য আপনাকেও ঐ সমস্ত কাজই করতে হবে যা আপনি নিজে করতে পারবেন যেই কাজে আপনি এক্সপার্ট , বাকি কাজ আপনি অন্য মানুষদের মাঝে আউটসোর্স করে দিতে পারেন । সমস্ত কথাগুলো আমি আপনাদেরকে ” THE 4 HOUR WORK WEEK BOOK ” থেকে বলেছি যে বইটি আমাদেরকে মূলত শিখায় কিভাবে আমরা জব এর পরিবর্তে নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারি কিভাবে আমরা কম কাজ করে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করতে পারি । তাও আবার আনন্দের সাথে।

KEEP IN MIND ” You grow i grow, i grow you grow. At the end we grow.”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Bengali BN English EN Hindi HI