লাইফস্টাইল

ডাবের পানির উপকারিতা এবং অপকারিতা

ডাবের পানির

ডাবের পানি হচ্ছে অপরিণত নারকেলের ভিতরে পাওয়া পরিষ্কার তরল, ডাব পরিপক্ক হওয়ার সাথে সাথে পানি নারকেলের মাংস দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়। অপরিণত নারকেল সবুজ বর্ণের হওয়ার কারণে আমরা একে (গ্রিন কোকোনাট) ডাব হিসেবে উল্লেখ করে থাকি। ডাবের পানি সাধারণত সুস্বাদু পানীয় হিসেবে এবং ডায়রিয়া বা ডিহাইড্রেশন নিরাময়ের সমাধান হিসেবে ব্যবহৃত হয়।যারা নিয়মিত জিম করেন তাদের জন্য ডাবের পানি বিশেষ উপকারী একটি উপাদান।

এটা কিভাবে কাজ করে?

ডাব

ডাবের পানি প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট এবং ইলেক্ট্রোলাইট যেমন পটাশিয়াম, সোডিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ। এই ইলেক্ট্রোলাইট সংমিশ্রণের কারণে, ডিহাইড্রেশন নিরাময় এবং প্রতিরোধ করতে ডাবের পানি ব্যবহৃত হয়। তবে কিছু বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দিয়েছেন যে ডাবের পানি ইলেক্ট্রোলাইট সংমিশ্রণ পুনঃহাইড্রেশন দ্রবণ হিসাবে ব্যবহারের জন্য পর্যাপ্ত নয়।

ডাবের পানি স্বাস্থ্য উপকারিতা

ডাবের পানি স্বাস্থ্য উপকারিতা

কম ক্যালরি সমৃদ্ধ

এককাপ ডাবের পানিতে 45 ক্যালরি থাকে, একাডেমি অফ নিউট্রিশন ডায়াবেটিকস অনুসারে ডাবের পানি হতে পারে অন্য অন্য উচ্চ ক্যালরি সমৃদ্ধ পানীয়র ভালো বিকল্প।ডাবের পানিতে চিনি এবং শর্করা কম থাকে, এটিতে পটাশিয়াম এর মত খনিজ ইলেক্ট্রোলাইট রয়েছে।তবে ডাবের পানি কখনোই 0 ক্যালরিযুক্ত নয়।

রক্তচাপ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করতে পারে

কলা পটাশিয়ামের উচ্চ গুণাগুণ এর জন্য খ্যাত। এক গ্লাস ডাবের পানিতে মাঝারি আকারের কলা থেকে বেশি পটাশিয়াম থাকে, গবেষকরা পরামর্শ দেন যে পটাশিয়াম সমৃদ্ধ ডায়েট রক্তচাপ হ্রাস করে এমনকি স্ট্রোকের বিরুদ্ধে বিশেষ সুরক্ষা দিতে পারে, ডাবের পানি হৃদরোগের রোগীদের জন্য বিশেষ ভূমিকা পালন করতে পারে।

হজম সমস্যা সমাধানে ডাবের পানি

ডাবের পানিতে ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম এমন একটি খনিজ উপাদান যা কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করতে বিশেষ সহায়ক ভূমিকা রাখে।

অসুস্থ রোগীদের জন্য ডাবের পানি

কোন কারণে যদি আপনার প্রচুর পরিমাণে বমি এবং ডায়রিয়া হয় তবে আপনার শরীর থেকে অনেক তরল বেরিয়ে যায়, ডাবের পানি পানের মাধ্যমে আপনি শরীরের পানির চাহিদার পারফেক্ট ব্যালেন্স করতে পারবেন। শারীরিক পানিশূন্যতায় হাত থেকে রেহাই পেতে, বমি এবং ডায়রিয়া জনিত সমস্যায় ভুগে থাকলে পরিমিত পরিমাণে ডাবের পানি সেবন করতে পারেন।

স্বাস্থ্যকর ত্বকের জন্য ডাবের পানি

যথাযথ হাইড্রেশন এর অভাবে আপনার ত্বক রুক্ষ ,শুষ্ক, আঁটসাঁট এ পরিণত হতে পারে ডাবের পানি পান করার মাধ্যমে আপনি আপনার প্রতিদিনের হাইড্রেশন এর প্রয়োজনীয়তা বজায় রাখতে পারেন যা উজ্জ্বল ত্বকের জন্য উপকারী। ডাবের পানিতে ভিটামিন-সি মিশিয়ে এটির কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করা যায় ভিটামিন-সি বেশ কয়েকটি এন্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যসমূহ, ডাবের পানি এবং ভিটামিন সি যুক্ত প্রাকৃতিক ভাবে কোলাজেন সংশ্লেষণে সংশ্লেষণ কে উদ্দীপিত করে মানুষের ত্বক সতেজ এবং মসলিন দেখাতে সহায়তা করে।

চিনিযুক্ত পানীয়ের বিকল্প

বলা হয়ে থাকে চিনি হচ্ছে সাদা বিষ,যতটুকু সম্ভব হয় চিনি কম খাওয়ার চেষ্টা করুন। ব্যাকটেরিয়াজনিত রোগ থেকে বাঁচতে চিনির ব্যবহার সীমিত করুন, কারণ ব্যাকটেরিয়ার প্রধান খাদ্য হচ্ছে চিনি। আপনি যদি চিনি এবং সোডা ব্যতীত পানীয় পান করতে চান আপনার জন্য ডাবের পানি একটি উত্তম বিকল্প,কারণ ডাবের পানিতে চিনি থাকেনা। ডাবের পানি অবশ্যই ডায়াবেটিস রোগী এবং যারা চিনি গ্রহণ সীমিত করতে চায় তাদের জন্য একটি ভালো পছন্দনীয় পানীয়।

ওজন কমাতে ডাবের পানি

দেহের প্রতিটি কোষকে পুষ্ট করার জন্য এবং আপনার বিপাকের হারকে অনুকূল করার জন্য যথাযথ হাইড্রেশন প্রয়োজনীয়। সাধারণত আমরা যখন ক্ষুধার্ত থাকি অনেক সময় শারীরিক ক্যালরির চাহিদা থেকেও বেশি খেয়ে ফেলি । মজার বিষয় হচ্ছে মানুষ খাওয়ার 20 মিনিট পর অনুভব করতে পারে খাবার তার জন্য বেশি ছিল না কম। ডাবের পানিতে সাধারণ পানি থেকেও ক্যালরির পরিমাণ অবশ্যই বেশি থাকে তবে আপনার যদি চিনিযুক্ত অথবা সোডা জাতীয় পানীয় খাওয়ার অভ্যাস থাকে তবে ডাবের পানি আপনার জন্য বিশেষ উপকারী একটি পানীয় হতে পারে ক্যালোরি কম গ্রহণের ক্ষেত্রে।

ডাবের পানির স্বাস্থ্য অপকারিতা

ডাবের পানির স্বাস্থ্য অপকারিতা

পানীয় হিসেবে ডাবের পানি বেশিরভাগ প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য নিরাপদ তবে অতিরিক্ত ডাবের পানি সেবন করার ফলে কিছু মানুষের পেটের সমস্যা হতে পারে। প্রচুর পরিমাণে ডাবের পানির কারণে রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা খুব বেশি হয়ে যায়, যার কারণে কিডনি সমস্যা এবং অনিয়মিত হার্ট বিট এর সমস্যা হতে পারে।

গর্ভাবস্থা এবং বুকের দুধ খাওয়ানো

গর্ভাবস্থা এবং বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন এমন মায়েদের জন্য ডাবের পানি পান করার বিষয়ে যথেষ্ট সচেতন হওয়া দরকার। নিরাপত্তার স্বার্থে গর্ভাবস্থা এবং বুকের দুধ খাওয়ানোর মায়েদের ডাবের পানি এড়িয়ে চলা উচিত।

রক্তে পটাশিয়ামের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া


ডাবের পানিতে উচ্চমাত্রায় পটাশিয়াম থাকে। আপনার যদি উচ্চ মাত্রাই রক্তচাপের সমস্যা থাকে ডাবের পানি পান করা থেকে বিরত থাকুন

কিডনির সমস্যা


ডাবের পানিতে উচ্চমাত্রায় পটাশিয়াম থাকে সাধারণত প্রস্রাবের সাথে পটাশিয়াম দেহ থেকে নির্গত হয়, তবে কিডনি সমস্যা রোগীদের ডাবের পানি এড়িয়ে যাওয়াই ভালো অতিরিক্ত পটাশিয়াম ব্লাড প্রেসার বাড়িয়ে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে যদি আপনার কিডনি সমস্যা থাকে, তবে ডাবের পানি সেবন করার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন।

সার্জারি

ডাবের পানি সার্জারি সময় এবং পরে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ কে বাধাগ্রস্ত করতে পারে। কোন নির্ধারিত অস্ত্রোপচারের কমপক্ষে দুই সপ্তাহ আগে ডাবের পানি ব্যবহার বন্ধ রাখাই ভালো।

reference

https://www.goodhousekeeping.com

https://www.healthline.com

https://www.medicalnewstoday.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Bengali BN English EN Hindi HI