বইয়ের রাজ্য

ধনী হওয়ার সহজ উপায়

ধনী হওয়ার উপায়

নেপোলিয়ন হিল একজন রাইটার এবং জার্নালিস্ট ছিলেন ভাগ্যক্রমে তার একবার সুযোগ হয়েছিল তার সময়কার সবথেকে ধনী ব্যক্তি এন্ড্রু কার্নেগীর ইন্টারভিউ নেয়ার। ইন্টারভিউ ঠিকঠাক চলছিল মাঝখানে হঠাৎ কার্নেগী নেপোলিয়ন কে একটি প্রস্তাব দিল উনি বললেন, আমি জানি বেশিরভাগ মানুষ জীবনে ব্যর্থ হবে , মানুষ নিজের উপর সবকিছু পরীক্ষা করে সফল হতে চায় কিন্তু সত্যিটা হচ্ছে সফল হওয়ার প্রিন্সিপাল সার্বজনীন এটা সবার জন্য একই মানুষের জন্য ভালো হবে যদি তারা নিজের উপর পরীক্ষা করে সময় ব্যয় না করে আমাদের কাছ থেকে শিখে । যার জন্য আমি চাই তুমি এরকম একটা ফিলোসফি এবং বই তৈরি করো যাতে দুনিয়ার সব সফল ব্যক্তির পরামর্শ থাকে যা মানুষকে জীবনে তাড়াতাড়ি সফল হতে সাহায্য করবে । আমি তোমাকে কিছু সফল ব্যক্তির ইন্টারভিউ নিতে সাহায্য করবো তাদের সাথে কন্টাক্ট করিয়ে দিব তবে হ্যাঁ আমি তোমাকে এই জন্য শুধু ভ্রমণের টাকাটাই দিব আর কিছু না । তুমি কি এই প্রস্তাব গ্রহণ করতে চাও? নেপোলিয়ান অল্প কিছুক্ষণ চিন্তা করে তার অফার গ্রহণ করে নিলেন। নেপোলিয়ান 20 বছর রিসার্চ করে 500+ সফল ব্যক্তির ইন্টারভিউ নিয়ে একটি বই তৈরি করলেন যার সামারি আমি আপনাদের জন্য আজকে লিখছি এই বইটা অনেক বড় এবং বুঝার অনেক কিছুই আছে কিন্তু আমি আপনাদেরকে আজকে শুধু গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি পয়েন্ট বলব।

ইচ্ছে

নিজের যে কোনো স্বপ্ন পূরণ করার প্রথম স্টেপ হচ্ছে যা কিছু আপনি অর্জন করতে চান তার প্রতি তীব্র ইচ্ছা পোষণ করা । শুধু ইচ্ছে পোষণ করাটাই সব কিছু না উদাহরণস্বরূপ বেশিরভাগ মানুষ যখন কোনো দামি গাড়ি দেখে তখন তার মনের ভিতর শুধু ইচ্ছা জাগে ইশ যদি আমার এরকম একটা গাড়ি থাকতো! অন্যদিকে যে তীব্র ইচ্ছা পোষন করার মানসিকতা রাখে সে অন্যরকম কিছু চিন্তা করে যেমন এই ল্যাম্বরগিনি গাড়িটা আমার অনেক পছন্দের একদিন না একদিন আমি এটা কিনেই ফেলব যেকোনো মূল্যে । আর এরকম মানসিকতাযই পারে এই চিন্তাকে পসিবল করতে। ব্যাপারটা হচ্ছে কোনো কিছু অর্জন করার তীব্র ইচ্ছা আপনার ওই জিনিসটা পাওয়ার সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দেয় এখন আমি আপনাদেরকে স্ট্রং ডিজায়ার এর আরেকটি উদাহরণ বলছি ১৫৯০ সালে হারনেম কটেজ সমুদ্রপথে দিয়ে একটি জায়গা দখল করার জন্য গিয়েছিল তার তীব্র ইচ্ছে ছিল যে কোনো মূল্যে ওই জায়গাটা নিজের নামে করে নেয়া। কিন্তু সে যখন ওই জায়গায় গিয়ে পৌঁছালো নিজের 5০০ সৈন্য নিয়ে তখন সে জানতে পারল তার শত্রুপক্ষের সৈন্য তার সৈন্যের তুলনায় অনেক বেশি এটা দেখে সে তার সৈন্যদেরকে আদেশ দিল তারা যে জাহাজে করে এসেছে জাহাজ গুলো যেন জ্বালিয়ে দেয়া হয় । কেন? কারণ তাকে এই যুদ্ধ জিততেই হবে যে কোনো মূল্যে। কিন্তু তার এটাও জানা ছিল যদি জাহাজ থাকে তাহলে তার সৈন্যদের পিছনে পালানোর ইচ্ছে হতে পারে এজন্য তিনি জাহাজগুলোকে জ্বালিয়ে দিয়েছেন আর সৈন্যদের উদ্দেশ্য করে বললেন এখন শুধু আমাদের কাছে দুইটা রাস্তা আছে । এক হচ্ছে হয়তো আমরা তাদের কাছে বন্দী হয়ে মরে যাব আর না হয় আমরা নিজেদের সবকিছু বাজি রেখে যুদ্ধ করে জিতে যাবো। তার এই ইমোশনাল বক্তব্য এবং ভয়ঙ্কর ডিসিশন এক অন্যরকম ফলাফল এনে দিয়েছিল । এরকম হলো যে তারা তার শত্রুপক্ষ সৈন্যদের পরাজিত করে যুদ্ধটা জিতে গেল । এটা হচ্ছে এক্সট্রিম ডিজায়ার, সুতরাং আপনিও আপনার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য আপনার পরিশ্রম আপনার সময় , বাকি সবকিছু যেন ব্যবহার করতে পারেন । আর এটা তো করতেই হবে আপনার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য ।

লেখক বলেন প্রিন্সিপাল গুলা আমরা আমাদের টাকা ইনকাম করার ইচ্ছে পূরণ করার জন্য ব্যবহার করতে পারি শুধু এই ছয়টি স্টেপ ফলো করে

1 fix the amount of money you want :সিদ্ধান্ত নিন আপনি আসলে কত টাকা ইনকাম করতে চান। এরকম না যে আপনি শুধু বলছেন যে আপনার অনেক টাকা ইনকাম করতে হবে কিন্তু নির্দিষ্ট কোনো অ্যামাউন্ট ফিক্স করেন নি । কেন না যতক্ষণ পর্যন্ত আপনি এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবেননা ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি ওই জাহাজের মতোই থাকবেন যে সাগরে তো নেমে গেছে কিন্তু সে নিজেও জানে না সে কোন বন্দরে উঠবে।যার কারণে তার ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনাও অনেক বেশি । এজন্যই অনেক গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে অ্যামাউন্ট ডিসাইড করা যে আপনি কত টাকা ইনকাম করতে চান যা আপনার জীবন যাপন করার জন্য চাইই চাই।

2 determine exactly what you intend to give in return for the money you desire: এখন অ্যামাউন্ট ইনকাম করার জন্য আপনি কি কি সেক্রিফাইস করতে পারেন তাও একজেক্টলি ডিসাইড করুন উদাহরণস্বরূপ আপনি এত টাকা ইনকাম করার জন্য আপনি এতক্ষণ সময় দিতে তৈরি আছেন , আপনি দিনে এত ঘন্টা কাজ করার জন্য তৈরি আছেন , এতক্ষণ ঘুম সেক্রিফাইস করার জন্য রেডি আছেন ETC, কারণ এটাই দুনিয়ার নিয়ম আপনি কোন কিছু পাওয়ার জন্য পরিবর্তে আপনাকে কিছু না কিছু তো দিতে হবে।

3 establish a definite date when you intend to possess the money your desire: একটা তারিখ নির্দিষ্ট করুন এবং ওই তারিখের আগে আপনি যত টাকা ইনকাম করবেন বলে ঠিক করেছেন তা যেকোনো মূল্যে ইনকাম করতে হবে বা ইনকাম করার জন্য যা যা কিছু দরকার আপনি সবকিছু করার জন্য তৈরি থাকবেন।

4 how to create a definite plan: এখন একটা প্ল্যান তৈরী করুন যেভাবে আপনি বানাতে পারেন এবং তাড়াতাড়ি ওই প্ল্যান অনুযায়ী কাজ শুরু করে দিন একটু ও অপেক্ষা করা যাবে না আপনি যদি চিন্তা করে থাকেন যে আপনি পারফেক্ট প্ল্যান তৈরি করে কাজ শুরু করবেন তাহলে কাজ কখনোই সময়মতো শুরু হবে না কারণ পারফেক্ট প্ল্যান বলে কিছু নেই, কাজ করা শুরু করে দিন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব হয়।

5 write down everything : একটা নোট খাতায় উপরের চারটা স্টেপ সম্পর্কে লিখুন। অবশ্যই লিখবেন কেননা এই লেখা আপনাকে একটা ডাইরেকশন দিবে যা আপনাকে এগিয়ে যেতে অনেক সাহায্য করবে।

6 read it daily :সবকিছু আপনি যা লিখেছেন দিনে কমপক্ষে দুইবার করে পড়ুন এবং জোরে জোরে পড়ুন বারবার রিপিট করুন কেননা এরকম করার কারণে আপনার মাইন্ডে একটা বিষয় বসে যাবে।

এই ছিল ছয়টা স্টেপ যা ফলো করে আপনার টাকার স্বপ্নকে বাস্তবে রূপান্তর করতে পারে এখন পর্যন্ত আমি আপনাদেরকে ওই পাঁচ পয়েন্ট এর ভিতরে মাত্র একটি পয়েন্ট বলেছি বাকি চারটি পয়েন্ট পড়ার জন্য তৈরি হয়ে যান।

স্পেশাল নলেজ

নলেজ সাধারণত দুই রকমের হয় নরমাল নলেজ স্পেশালাইজড নলেজ। সমস্যাটা হচ্ছে বেশিরভাগ মানুষ ছোটবেলা থেকেই নরমাল নলেজ দিয়ে নিজেদের মাথা ভর্তি করে রাখে যেমন সাধারণ জ্ঞান,ফ্যাক্ট, ফিগার ইটিসি যার বেশির ভাগ রিয়েল লাইফে কোনো কাজে আসে না অন্যদিকে সফল মানুষ নিজেদেরকে কোন একটা ক্যাটাগরিতে দক্ষ করে তোলে যাতে করে সে ওই ক্যাটাগরিতে এক্সপার্ট হয়ে যায় আর তার ওই নলেজ বাস্তব জীবনে তাকে টাকা ইনকাম করতে অনেক সাহায্য করে । উদাহরণস্বরূপ একজন গ্রাম্য ডাক্তার যে একটা দোকানে বসে সব রোগের জন্য ওষুধ দিয়ে ও তত টাকা ইনকাম করতে পারে না যা একজন স্পেশালিস্ট ডাক্তার আয় করে থাকে শুধু একটি বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করে। এজন্যই লেখক সাজেস্ট করেন আপনি ১০ টি আলাদা আলাদা ক্যাটাগরিতে জ্ঞান অর্জন না করে যেকোনো একটা ক্যাটাগরিতে এত জ্ঞান অর্জন করুন আর প্র্যাকটিস করুন যেন আপনার থেকে এক্সপার্ট ওই ক্যাটাগরিতে আর কেউ না থাকে। কেননা এরকম স্পেশাল নলেজ আপনাকে টাকা ইনকাম করতে অনেক বেশি সহযোগিতা করবে।

কল্পনা

বলা হয়ে থাকে মানুষ ওই সবকিছুই অর্জন করতে পারে যা সে কল্পনা করতে পারে ।এখন যদি আপনার কাছে কথাটা অনেক বেশি বাড়াবাড়ি মনে হয় তাহলে মনে রাখবেন গত ১৫০ বছরে মানুষ যা এচিভ করতে পেরেছে পুরো মানব সভ্যতা তা এচিভ করতে পারে নাই । উদাহরণস্বরূপ ১০০ বছর আগে যদি আপনি বলতেন মানুষ একটা বক্সের উপরে বসে উড়ে উড়ে এক দেশ থেকে অন্য দেশে চলে যাবে তাও আবার এক দিনের ভিতরে মানুষ আপনাকে পাগল ছাড়া অন্য কিছু বলতো না। কিন্তু আজ এই ইমাজিনেশন প্লেন, হেলিকপ্টার কারণে একটা বাস্তবতা মাত্র। কোন একটা যন্ত্রে কিছু নাম্বার টাইপ করে দুনিয়ার যেকোন প্রান্তে কথা বলার ব্যাপারটা একটা সময় ইমাজিনেশন এই ছিল যা আজকে একটি ছোট বাচ্চা অনায়াসে করতে পারে তার মোবাইল ব্যবহার করে ।এরকম অনেক কিছু সম্ভব হয়েছে এবং বিলিয়ন ডলারের ব্যবসা দাঁড়িয়েছে শুধুমাত্র ইমাজিনেশন এর পাওয়ার এর কারনে । আপনাকেও আপনার তীব্র ইচ্ছাকে বাস্তবে রূপ দেয়ার জন্য ইমাজিনেশন /আইডিয়ার প্রয়োজন হবেই হবে।

জেদ

কোনো কিছু অর্জন করার তীব্র ইচ্ছা এবং জেদ দুইটা মিলে এমন একটা ম্যাজিক্যাল ফর্মুলা তৈরি করে যা যে-কোন মানুষকে সকল বানাতে পারে। একটা ছেলে ছিল যে কানে কম শুনত। একদিনে তার শিক্ষক একটি নোট লিখে তার ঘরে পাঠালো যাতে লেখা ছিল আপনার বাচ্চা অনেক বেয়াদব জীবনে কোন কিছুই করতে পারবেনা দয়া করে আপনি আপনার বাচ্চা কে স্কুল থেকে নিয়ে যান । তখন তার মা উত্তর দিল আমার বাচ্চা বেয়াদব না । আমি নিজে তাকে পড়াবো এবং দেখে নেবেন সে একদিন অনেক বড় মানুষ হবে এসব কিছু হওয়ার পর ওই বাচ্চা মনের ভিতরে বড় মানুষ হবার একটা তীব্র ইচ্ছা যেঁকে বসলো এবং তারপর সে তার জেদের বসে সফল হয়েও দেখিয়েছে । তার অসাধারণ জেদের একটি উদাহরণ হচ্ছে লাইট বাল্ব এর ইনভেনশন । আমি যে ছেলের কথা বলছি ও ছিল থমাস আলভা এডিসন আনুমানিক ১০০০ বার ফেল হয়েছিল লাইট বানাতে গিয়ে তারপর ও সে হার মানে নাই এবং বারবার চেষ্টা করতে করতে লাইট বাল্ব বানিয়ে দেখিয়েছিলেন । সুতারাং এই ভাবে যদি আপনি আপনার স্বপ্ন পূরণ করতে চান তাহলে নিজের মনের ভিতরে জেদ তৈরি করুন যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনার স্বপ্ন পূরণ হয়ে ।আরে এজন্য যত সমস্যা আসুক আপনি সবকিছু ওভারকাম করে আপনার স্বপ্ন পূরণ করে দেখাবেন ই এবং আপনি সত্যিই এটা করতে পারবেন এরকম মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে যান।

the Power Of The Mastermind

আপনি ওই পাঁচজন মানুষের মতোই হবেন যাদের সাথে আপনি আপনার ম্যাক্সিমাম সময় কাটিয়ে থাকেন। মানে আপনি যদি পাঁচজন পজেটিভ এবং সফল ব্যক্তির সাথে আপনার বেশিরভাগ সময় কাটান তাহলে অনেক বেশি চান্স থাকে আপনি নিজেও সফল হওয়ার । কিন্তু আপনি যদি নেগেটিভ এবং অসফল ব্যক্তির সাথে আপনার বেশিরভাগ সময় কাটান তাহলে অনেক বেশি সুযোগ থাকে আপনিও অসফল হওয়ার ।এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয় যাতে আপনার সবথেকে বেশি খেয়াল করা উচিত ।কারণ বেশিরভাগ সময় ব্যর্থ ব্যক্তিদের যদি আপনি খেয়াল করেন তাহলে দেখবেন তারা সব সময় ও ব্যর্থ ব্যক্তিদের আশেপাশে ঘিরে থাকে যা তাদেরকে সবসময় নিরুৎসাহিত করে এবং নেগেটিভ কথাবার্তা বলে যার কারণে ভাল ভাল কথা শিখা এবং ভালো ভালো চিন্তা করার পরেও সে খুব ভালো কিছু করতে পারে না । অন্যদিকে সফল ব্যক্তিরা পজেটিভ মানুষের সাথে নিজের বেশিরভাগ সময় কাটায় যারা সবসময় পজেটিভ কথা বলে এবং কাজ করতে উৎসাহিত করে এবং তাদেরকে সফল হতে অনেক সহযোগিতা করে ।মানুষ সামাজিক জীব আপনি মানেন অথবা না মানেন আমাদের আশেপাশের মানুষের কাছ থেকে আমরা অনেক কিছুই শিখি যা আমাদের বাস্তব জীবনে অনেক প্রভাব ফেলে। উদাহরণস্বরূপ আপনার গ্রুপের সবাই যদি সিগারেট খায় তাহলে অনেক বেশি সুযোগ থাকে আপনি নিজেও সিগারেট খাওয়ার লাইফের কোন না কোন সময় । এজন্য যতোটুকু সম্ভব হয় আপনি পজেটিভ এবং সাকসেসফুল মানুষের সাথে নিজের সময় বেশি কাটান।

শেষ করার আগে বলে যাই আমি আপনাদেরকে এসব কথা আমার প্রিয় বই থিংক অ্যান্ড গ্রো রিচ থেকে বলেছি যা ২০১৫ হিসেবে ১০০ মিলিয়ন প্লাস কপি বিক্রি হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Bengali BN English EN Hindi HI